ফটিকছড়িতে উপজেলা চেয়ারম্যান হলেন নাজিমুদ্দিন মুহুরী, হাটহাজারীতে ইউনুস গণি

খাসখবর চট্টগ্রাম ডেস্ক: দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নাজিমুদ্দিন মুহুরী। একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বখতিয়ার সাঈদ ইরানকে হারিয়ে তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

thai foods

হাটহাজারীতে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ইউনুচ গণি চৌধুরী (আনারস) উপজেলা চেয়ারম্যান, ব্যারিস্টার আশরাফ উদ্দীন (টিউবওয়েল) পুরুষ ভাইস-চেয়ারম্যান এবং ফুটবল প্রতীকের সাজেদা বেগম মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

হাটহাজারীতে বিজয়ী ইউনুস গনি চৌধুরী আনারস প্রতীকে আরো দুই প্রার্থীকে হারিয়ে জয় পেয়েছেন। মোটরসাইকেল প্রতীকে তাঁর সঙ্গে লড়ছিলেন এসএম রাশেদুল আলম এবং ঘোড়া প্রতীকে মো. সোহরাব হোসেন চৌধুরী।

এর মধ্যে আনারস প্রতীকের ইউনুস গণি চৌধুরী ৩৫ হাজার ৯৭৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের সোহরাব হোসেন চৌধুরী নোমান পেয়েছেন ৩৩ হাজার ৮৫ ভোট এবং মোটরসাইকেল প্রতীকের এস এম রাশেদুল আলম পেয়েছেন ২৬ হাজার ৪৮৮ ভোট।

পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তাদের মধ্যে টিউবওয়েল প্রতীকের ব্যারিস্টার আশরাফ উদ্দীন ৩৮ হাজার ৮৬৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান (পুরুষ) নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বৈদ্যুতিক বাল্ব প্রতীকের এমএ খালেদ চৌধুরী পেয়েছেন ২৫ হাজার ১২৩ ভোট, তালা প্রতীকের অশোক কুমার নাথ পেয়েছেন ২১ হাজার ৮২৯ ভোট এবং চশমা প্রতীকের নুরুল আবছার পেয়েছেন ৮ হাজার ৪৮ ভোট।

তাছাড়া, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ফুটবল প্রতীকের সাজেদা বেগম ৩০ হাজার ৭১৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান (মহিলা) নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী প্রজাপতি প্রতীকের বিবি ফাতেমা শিল্পী পেয়েছেন ২৩ হাজার ৬২৭, হাঁস প্রতীকের শারমীন আক্তার পেয়েছেন ২০ হাজার ৫৪৭ এবং কলস প্রতীকের মোক্তার বেগম মুক্তা পেয়েছেন ১৮ হাজার ৪৪২ ভোট।

বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার এবিএম মশিউর জামান।

ফটিকছড়িতে চেয়ারম্যান পদে নাজিম উদ্দীন মুহুরী ১৭ হাজার ৯৯৮ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি মোটরসাইকেল প্রতীকে পেয়েছেন ৫৯ হাজার ১৬৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বখতিয়ার সাঈদ (ইরান) আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৪১ হাজার ৭৬৭ ভোট। এ উপজেলায় মোট ২২ শতাংশ ভোট কাস্ট হয়।

মঙ্গলবার রাতে ফটিকছড়ি উপজেলা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ইউএনও মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক চৌধুরী ফলাফল ঘোষণা করেন।

এবার উপজেলা নির্বাচনে দলীয় প্রতীক না থাকায় নাজিমুদ্দিন মুহুরী মোটরসাইকেল প্রতীকের প্রার্থী হন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বখতিয়ার সাঈদ (ইরান)। ফলাফল ঘোষণার পর নাজিমুদ্দিন মুহুরী বলেন, ‘জনগণের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে আমাকে তারা ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান বানিয়েছেন। যদি বেঁচে থাকি, পাঁচটি বছর মানুষের ভালোবাসা নিয়ে ফটিকছড়ি উপজেলাকে স্মার্ট উপজেলা গঠন করতে চাই।’ উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে ১৪২ টি কেন্দ্রে মোট ভোটার রয়েছে ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৬০৭ জন। তন্মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছে ২ লাখ ৪৫ হাজার ৯৩৮ জন এবং মহিলা ভোটার রয়েছে ২ লাখ ১৮ হাজার ৬৬৭ জন।

এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে ফটিকছড়ি পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো: জসিম উদ্দিন টিউবওয়েল প্রতীকে ৩২ হাজার ৮৮৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এড. সালামত উল্লাহ চৌধুরী পেয়েছেন ২৯ হাজার ৮৬৭ ভোট। এছাড়া তালা প্রতীকে সৈয়দ জাহেদ উল্লাহ কৌরাইশী পেয়েছেন ২০ হাজার ৩৭৯ ভোট এবং মো: নাজিম উদ্দিন সিদ্দিকী চশমা প্রতীকে পেয়েছে ১২ হাজার ১১ ভোট।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মহিলা নেত্রী শারমীন আক্তার নুপুর ৫৪ হাজার ৮৫৮ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান জেবুন্নাহার মুক্তা পেয়েছেন ৪১ হাজার ৭৫ ভোট।

খখ/মো মি

আগে“দ্বিতীয় ধাপে “৩০ শতাংশের বেশি ভোট পড়েছে”-সিইসি
পরেনির্বাচন কমিশন নতুন সচিব শফিউল আজিম